শনিবার ৪ ডিসেম্বর ২০২১ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

Weekly Bangladesh নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত
নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত

ডিএইচ কেয়ার’র খাবার বিতরণ কর্মসূচীতে কুইন্স ও ব্রুকলীন বরো প্রেসিডেন্ট

বাংলাদেশ রিপোর্ট :   |   বৃহস্পতিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০২০

ডিএইচ কেয়ার’র খাবার বিতরণ কর্মসূচীতে কুইন্স ও ব্রুকলীন বরো প্রেসিডেন্ট

খাবার বিতরণকালে কুইন্স বরো প্রেসিডেন্ট ডনোভান রিচার্ড ও ব্রুকলীন বরো প্রেসিডেন্ট এরিক এডামস

বাংলাদেশী মালিকানাধীন লাইসেন্সড হোমকেয়ার এজেন্সি ডিএইচ কেয়ার। নিউইয়র্ক সিটিতে করোনা ভাইরাস মহামারির শুরু থেকেই কমিউনিটিতে বিভিন্ন সেবামূলক কাজ করছে। বিশেষ করে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে প্রতিষ্ঠানটির খাদ্য বিতরণ কর্মসূচী প্রশংসিত হয়েছে ব্যাপকভাবে। এখনো প্রতি সপ্তাহে খাদ্য বিতরণ কর্মসূচী অব্যাহত রেখেছে। গত ১১ ডিসেম্বর শুক্রবার, জ্যামাইকার ১৭৫ স্ট্রিটস্থ হাজী ক্যাম্প মসজিদের সামনে খাদ্য বিতরণ করে ডিএইচ কেয়ার। জুমা’র নামাজে আগত মুসল্লি এবং পথচারীরা এসময় খাবার সংগ্রহ করেন। কুইন্স বরোর নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডনোভান রিচার্ড ও ব্রুকলীন বরো প্রেসিডেন্ট এরিক এডামস সহ সিটির বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ এই কর্মসূচীতে অংশ নেন। ডিএইচ কেয়ারের অন্যতম স্বত্বাধিকারী শাহারিয়ার রহমান ও মনিরুল ইসলাম মঞ্জুর তত্ত্বাবধানে প্রতিষ্ঠানটির একদল তরুণ খাবার বিতরণ করেন। তাদেরকে বিশেষভাবে সহযোগিতা করেন জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটির প্রেসিডেন্ট বিশিষ্ট কমিউনিটি এ্যাক্টিভিস্ট ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার ও হাজী ক্যাম্প মসজিদের সেক্রেটারী মোঃ আকতার রহমান। এসময় মসজিদের ইমাম হাফিজ মাওলানা রফিকুল ইসলাম সহ অন্যান্যরা খাদ্য বিতরণ কর্মসূচীতে সহযোগিতা করেন। প্রায় তিনশো মানুষ এসব খাদ্য সামগ্রী গ্রহণ করেন। এছাড়া খাদ্য বিতরণকালে ‘সেফেস্ট’ নামক একটি সংগঠনের পক্ষ থেকে ফল ও সব্জীর বক্স বিতরণ করা হয়।

খাদ্য বিতরণের শুরুতে কুইন্স বরো প্রেসিডেন্ট ডনোভান রিচার্ড ও ব্রুকলীন বরো প্রেসিডেন্ট এধরণের সেবামূলক কর্মসূচীর ভূয়সী প্রশংসা করেন। তারা বলেন, করোনা ভাইরাস মহামারি মোকাবিলা করতে সবাইকে সম্মিলিতভাবে প্রচেষ্টা চালাতে হবে। জন প্রতিনিধিদ্বয় কমিউনিটির কল্যাণে তাদের সহযোগিতা অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। এর আগের সপ্তাহেও ডিএইচ কেয়ার’র পক্ষ থেকে একই মসজিদ প্রাঙ্গণ থেকে খাদ্য বিতরণ করা হয়। নিয়মিত খাদ্য বিতরণের জন্য ডিএইচ কেয়ার খাবার বহন এবং তা গরম রাখার জন্য স্বয়ংসম্পূর্ন একটি ভ্যান ক্রয় করেছে।

উল্লেখ্য নিউইয়র্ক সিটিতে মহামারি করোনাকালে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষের সেবা ও সাহায্যার্থে রাস্তায় নেমে আসে ডিএইচ কেয়ার’র একনিষ্ঠ একদল তরুণ কর্মকর্তা। ঘরে ঘরে দুর্দশাগ্রস্থ মানুষের পাশে ছুটে যায় তারা । হাত বাড়ায় সহযোগিতার। শুধু বাংলাদেশী কুম্যনিটি নয় তাদের এ হাত প্রসারিত হয় করোনায় যারা সম্মুখ যুদ্ধে লড়ছেন সেসব স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রতিও। হাসপাতাল ও চিকিৎসকদের চেম্বারে এসময় পৌছে দেয় তারা সাহায্য সামগ্রী।

কম্যুনিটির বয়স্ক মানুষদের নিয়মিত সেবাদান করে আসছে ডিএইচ কেয়ার। করোনাকালে একদিনও ঘরে বসে থাকেনি তারা। “মানুষ মানুষের জন্য” এ শ্লোগান সামনে রেখে জীবনের মায়া পেছনে ফেলে রাস্তায় নেমে আসে। নিউইয়র্কে করোনা মহামারীতে নিম্ন আয়ের মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছে ডিএইচ কেয়ার’র পরিচালকগণ। অসহায় মানুষের কাছে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য উপকরণ পিপিই প্রদান, ত্রাণ বিতরণ ও আর্থিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। তারা এই মহতি কাজ করেছেন নীরবে নিভৃতে। ডিএইচ কেয়ারের জ্যামাইকাস্থ কার্যালয় থেকে মানবিক সাহায্য বিতরণের কাজ শুরু হয় কোভিড-১৯ এর ভয়াল দিনগুলোতেÍ। এই প্রতিষ্ঠান থেকে বিভিন্ন পরিবার ও চিকিৎসকদের চেম্বারে বিতরণ করা হয় কে-১৯ মাস্ক, সার্জিক্যাল মাস্ক, গ্লাভস সহ জরুরী পিপিই উপকরণ। এ ছাড়া নিয়মিতভাবে এই প্রতিষ্ঠান থেকে দুর্দশাগ্রস্থ মানুষের বাড়ি বাড়ি পৌছে দেয়া হয়েছে গ্রোসারী পণ্য। ডিএইচ কেয়ারের অফিসে প্রতিদিন গভীর রাত পর্যন্ত গ্রোসারী পণ্যের প্যাকেট ও বক্স তৈরী করা হতো। তারা আরো জানান, বেশ কিছু পরিবারকে আর্থিক সহযোগিতাও করা হয়েছে। এসব পরিবার বাসা ভাড়া দিতে পারছিলেন না বলে জানান তারা।

ডিএইচ কেয়ার পরবর্তীতে নিউইয়র্ক শহরের বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমান ফুডভেন্ডারের মাধ্যম হালাল খাবার বিতরণ অব্যাহত রাখে। এছাড়া বিভিন্ন হাসপাতালের সামনে তারা চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীদের মাঝে খাবার বিতরণ করেছেন। বিভিন্ন হাসপাতালে তাদের প্রতিষ্ঠান থেকে খাবার সরবরাহ করা হয়েছে চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রতি উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে। করোনা মহামারির সময়ে যে সব হাসপাতালে খাবার সরবরাহ করা হয়েছে, সেগুলো হচ্ছে নিউইয়র্ক সিটির এলহামর্স্ট হাসপাতাল, জ্যামাইকা হাসপাতাল, কুইন্স হাসপাতাল, কনি আইল্যান্ড হাসপাতাল, ব্রুকডেল ইউনিভার্সিটি হাসপাতাল, মেমোনেডিস মেডিকেল সেন্টার, এনওয়াইসি হেলথ এন্ড মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, এনওয়াই লেংগুন হাসপাতাল ও সেন্টস জনস ইপেকসক্যাবল ইন্টারফেইথ হাসপাতাল। ডিএইচ কেয়ারের পরিচালকগণ জানান, তারা মানুষের পাশে দাঁড়াতে গিয়ে কিছু সংগঠনের কর্মকর্তা ও সদস্যদের স্বত:স্ফূর্ত সহযোগিতাও পেয়েছেন। স্বেচ্ছাশ্রম ও আর্থিক সহযোগিতা পাওয়ায় তারা দুর্দশাগ্রস্থদের পাশে দাঁড়ানোর কাজ সুন্দরভাবে সম্পন্ন করতে পেরেছেন। এসব সংগঠনগুলোর মধ্যে রয়েছে জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটি, নর্থ মুসলিম গিভিংব্যাক, পেইস অর্গানাইজেশন, খাইবার অর্গানাইজেশন ও ব্রুকলীন ব্যুরো প্রেসিডেন্ট ।

ডিএইচ কেয়ার (DHCare) বাংলাদেশী মালিকানাধীন একটি লাইসেন্স্ড হোম কেয়ার এজেন্সী। জ্যামাইকার ১৭২-১৫ হিলসাইড এভিন্যুতে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান কার্যালয়। এছাড়া রিগোপার্ক ও ওজোনপার্কে রয়েছে আরো দু’টি অফিস। ডিএইচ কেয়ার’র মূল কাজ হলো সিডিপ্যাপ’র মাধ্যমে বয়স্ক মানুষের সেবার সুযোগ সৃষ্টি করা। অত্যন্ত সুনামের সাথে একাজটি করছে ডিএইচ কেয়ার। প্রায় ৪০ জনের একটি টিম কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটির জন্য। ডিএইচ কেয়ার’র সাথে ৭১৮-৪৫৯-০১৮০ নাম্বারে যেকেউ যোগাযোগ করতে পারেন।

Posted ৩:৩৭ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০২০

Weekly Bangladesh |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
Dr. Mohammed Wazed A Khan, President & Editor
Anwar Hossain Manju, Advisor, Editorial Board
Corporate Office

85-59 168 Street, Jamaica, NY 11432

Tel: 718-523-6299 Fax: 718-206-2579

E-mail: weeklybangladesh@yahoo.com

Web: weeklybangladeshusa.com

Facebook: fb/weeklybangladeshusa.com

Mohammed Dinaj Khan,
Vice President
Florida Office

1610 NW 3rd Street
Deerfield Beach, FL 33442

Jackson Heights Office

37-55, 72 Street, Jackson Heights, NY 11372, Tel: 718-255-1158

Published by News Bangladesh Inc.