শুক্রবার ৩০ জুলাই ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Weekly Bangladesh নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত
নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত

নিউইয়র্ক সিটিতে করোনা ভ্যাকসিন নিতে করণীয়

বাংলাদেশ রিপোর্ট :   |   সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১

নিউইয়র্ক সিটিতে করোনা ভ্যাকসিন নিতে করণীয়

নিউইয়র্ক সিটিতে করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন নেয়ার জন্য সাধারণ মানুষের ব্যাপক আগ্রহ সত্বেও তারা অ্যাপয়েন্টমেন্ট নেয়ার জন্য দিশেহারা হয়ে পড়েছে। অ্যাপয়েন্টমেন্ট ঠিক করার জন্য বিভিন্ন ওয়েবসাইট ভিজিট করে হিমশিম খাচ্ছেন অ্যাপয়েন্টমেন্ট পেতে। আগ্রহীদের চাপে মুহূর্তেই ফুরিয়ে যাচ্ছে নির্ধারিত স্লট বা অ্যাপয়েন্টমেন্ট নির্ধারণের সময়। ডিসেম্বরের ১৫ তারিখে নিউইয়র্ক সিটিতে ভ্যাকসিন দেয়া শুরু হলেও গত এক মাসে ভ্যাকসিন দেয়ার কাজ খুব অগ্রসর হয়নি। একদিকে প্রয়োজনের তুলনায় ভ্যাকসিনের স্বল্প সরবরাহ এবং ভ্যাকসিন দেয়ার জন্য নির্ধারণ করা স্থানগুলোতে অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়ার জটিলতায় এক্ষেত্রে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ভ্যাকসিনেশনের কাজ অগ্রসর হচ্ছে না। তবে আশার কথা যে এ মুহূর্তে একটু জটিলতা মনে হলেও তা শিগগিরই দূর হয়ে যাবে। কারণ এখন যারা ভ্যাকসিন নেয়ার অগ্রাধিকার তালিকায় রয়েছেন, তাদের সংখ্যার তুলনায় ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ কম আসছে। অতএব এ মুহূর্তে ভ্যাকসিন নেয়া অনেকটা ভাগ্যের উপর নির্ভর করছে। সামাজিক মাধ্যমে ইতোমধ্যে ভ্যাকসিন নেয়ার জন্য তালিকাভূক্ত হতে যেসব ওয়্সোইট ও ফোন নম্বর দেয়া হয়েছে, সেগুলোতে যোগাযোগ করে লোকজন ঘন্টার পর ঘন্টা নয়, দিনের পর দিন অপেক্ষা করছেন অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়ার জন্য। এই চেষ্টা চালানোর পাশাপাশি অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়ার জন্য কি করতে হবে অথবা কেউ যদি সরাসরি ভ্যাকসিন দেয়ার কেন্দ্রে সরাসরি উপস্থিত হন তাহলে কি হতে পারে তা নেয়া প্রয়োজন।

কে ভ্যাকসিন পাওয়ার যোগ্য?

এ মুহূর্তে যারা ভ্যাকসিন পাওয়ার যোগ্য তাদের মধ্যে রয়েছেন চিকিৎসা সেবাদানে নিয়োজিত ব্যক্তিবর্গ ও যারা নার্সিং হোমে সেবা গ্রহণ করছেন, অত্যাবশ্যকীয় সেবায় নিয়োজিত কর্মী, যেমন; পুলিশ, শিক্ষক, গ্রোসারি কর্মী এবং ৬৫ বছর বয়সের উর্ধে যে কেউ। নিউইয়র্ক সিটি ও নিউইয়র্ক স্টেটের কোভিড ১৯ ওয়েবসাইটগুলোতে (New York City and New York State.) আরো বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যাবে।

আমি ইতোমধ্যে কোভিড ১৯ সংক্রমিত হয়েছি, আমাকেও কি ভ্যাকসিন নিতে হবে?

হ্যাঁ। সিটির F.A.Q. page  ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে যে, কেন সংক্রমিত ব্যক্তিদের জন্য ভ্যাকসিন গ্রহণ করা উচিত। এতে সংশ্লিষ্টদের শেষ পজিটিভ টেস্টের সময় থেকে ৯০ দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করার জন্য পরামর্শ দেয়া হয়েছে। কিন্তু একথা বলা হয়নি যে কেউ যদি এ সময়ে আগে ভ্যাকসিন নিতে যান তাহলে তাকে ভ্যাকসিন না দিয়ে ফিরিয়ে দেয়া হবে।

আমার বয়স ৬৫ বছরের নিচে, আমি কি ভ্যাকসিন নিতে পারবো?

যাদের বয়স ৬৫ বছরের নিচে নিউইয়র্কে এখনো তারা ভ্যাকসিন নেয়ার অগ্রাধিকারের মধ্যে নেই এবং এ ব্যবস্থার কোন পরিবর্তনের আভাস এখনো দেয়া হয়নি। মেয়র বিল ডি ব্লাজিও বলেছেন যে তিনি আশা করছেন এই শ্রেনির লোকজনকে ভ্যাকসিন দেয়ার তালিকায় শিগগিরই আনা হবে। গভর্নর এন্ড্রু ক্যুমো গত ১৫ জানুয়ারী বলেছেন যে এই শ্রেনিকে এখনই ভ্যাকসিন দেয়ার তালিকায় আনা হলে ভ্যাকসিনের সীমিত সরবরাহের মধ্যে লক্ষ লক্ষ মানুষ একযোগে অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়ার জন্য হুড়োহুড়ি শুরু করবে।

আমাকে কি আমার ইমিগ্রেশন স্ট্যাটাস সম্পর্কে জানাতে হবে?

না। সিটির city F.A.Q. page ওয়েবসাইটে এ সংক্রান্ত কোনকিছু বলা হয়নি।

ভ্যাকসিন নিতে হলে আমাকে কত ব্যয় করতে হবে?

ভ্যাকসিন নিতে আপনাকে কোন অর্থ ব্যয় করতে হবে না। তবে আপনাকে যে ফরম পূরণ করতে হবে তাতে আপনার হেলথ ইন্স্যুরেন্স আছে কিনা তা জানতে চাওয়া হতে পারে। এর সাথে আপনার ব্যয়ের কোন সম্পর্ক নেই।

নিউইয়র্ক সিটিতে ভ্যাকসিন পেতে হলে আমাকে কি নিউইয়র্ক সিটির বাসিন্দা হতে হবে?

না। কেউ যদি অন্য স্টেটের বাসিন্দাও হন এবং সিটিতে অত্যাবশ্যকীয় কর্মী হয়ে থাকেন, তাহলে তিনিও এখন সিটি পরিচালিত ভ্যাকসিনেশন সেন্টারে ভ্যাকসিন নেয়ার যোগ্য। তবে সিটিতে নিউইয়র্ক স্টেট সরকার পরিচালিত কয়েকটি ভ্যকসিনেশন সেন্টার রয়েছে, যেখানে নিয়ম একটু ভিন্ন হতে পারে।

নিউইয়র্ক স্টেট সরকার পরিচালিত সেন্টারগুলোতে কি সিটির বাসিন্দারা ভ্যাকসিন নেয়ার জন্য যেতে পারবেন?

হ্যাঁ পারবেন। স্টেটের যে কোন বাসিন্দা স্টেট পরিচালিত সেন্টারে ভ্যাকসিন গ্রহণের যোগ্য।

আমি জানতে পেরেছি যে, অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়ার জন্য লোকজন ভূঁয়া ঠিকানা ব্যবহার করছে। সেক্ষেত্রে কি হতে পারে?

স্টেট গভর্নরের অফিসের এক মুখপাত্র বলেছেন, স্টেটের পক্ষ থেকে নির্দেশনা হচ্ছে যে, কেউ যদি ভ্যাকসিন নিতে চান তাহলে তাকে অবশ্যই তিনি কোথায় বসবাস করেন তা জানাতে হবে। ভুল তথ্য দেয়া একটি অপরাধ, যে কারণে কারাদন্ড পর্যন্ত হতে পারে।

অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়ার আগে আমাকে আর কি করতে হবে?

অ্যাপয়েন্টমেন্ট দ্রুত ফুরিয়ে যাচ্ছে। হঠাৎ করেই হয়তো একটা সুযোগ এলো, যেহেতু একসাথে অনেক লোক চেষ্টা করছে, তাদের কারো নামে তা বরাদ্দ হয়ে গেল। সেজন্য সুযোগ পাওয়া মাত্র চেষ্টা করতে হবে। ইতোমধ্যে এ সংক্রান্ত যেসব ওয়েবসাইট চালু হয়েছে সেগুলোতে একাউন্ট খুলে ইউজার নেম ও পাসওয়ার্ড মুখস্থ রেখে সতর্কতার সাথে অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়ার পূর্ব পর্যন্ত চেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে। পাঁচ বরোতে কোথায় ভ্যাকসিনেশন সেন্টার রয়েছে তা জানতে আপনি Vaccine Finder ওয়েবসাইট ভিজিট করতে পারেন। সর্বত্র অনলাইনে নাম রেজিষ্টার করতে হয়। অনেক সেন্টারে টেলিফোন করেও অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়ার সুযোগ রাখা হয়েছে। Vaccine Finder এ গেলে লিঙ্ক দেয়া আছে, যেখানে ভ্যাকসিনেশন পেজে গেলে অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়ার আগে আপনাকে বেশ কিছু প্রশ্ন করে আপনার ভ্যাকসিন পাওয়ার যোগ্যতা যাচাই করে নেয়া হবে।

ফার্মেসি এবং আমার ডাক্তারের অফিস কি আমাকে কোন সহায়তা করতে পারবে?

কিছু ফার্মেসি ভ্যাকসিন দিচ্ছে এবং তাদের সম্পর্কে বলা হয়েছে। তবে ছোট ফার্মেসিগুলোতে ভ্যাকসিন দেয়ার সুযোগ নেই। কারণ ভ্যাকসিন হিমাঙ্কের নিচে যে তাপমাত্রায় রাখতে হবে অধিকাংশ ফার্মেসিতে সে ব্যবস্থা নেই। ডাক্তারের অফিসগুলোতেও এ মুহূর্তে ভ্যাকসিন দেয়ার সুযোগ নেই। তবে তারা কোথায় ভ্যাকসিন দেয়া হয় তা জানাতে পারবে এবং অপেক্ষমান তালিকার জন্য আপনার নামও নিতে পারে।

অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়ার জন্য আমি কি কাউকে ফোন করতে পারি?

হ্যাঁ, পারেন। কিন্তু ফোনে অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়া বিরাট ধৈর্য্যরে ব্যাপার। আপনি ৮৭৭-৮২৯-৪৬৯২ নম্বরে ফোন করতে পারেন। ফোন করা যাবে সকাল ৮টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত। মেয়রের মতে ফোনে অপেক্ষার সময় ১০ থেকে ১৫ মিনিট। কিন্তু অনেকের অভিজ্ঞতা হলো তারা এক ঘন্টা বা আরো বেশি সময় অপেক্ষা করে অ্যাপয়েন্টমেন্ট পেয়েছেন। যারা ইংরেজি ছাড়া অন্য ভাষায় কথা বলতে পারেন তারা ৮৩৩-৬৯৭-৪৮২৯ নম্বরে ফোন করতে পারেন।

অ্যাপয়েন্টমেন্ট পেলে আমাকে সাথে কি নিতে হবে?

আপনি যে ওয়েবসাইটে আপনার অ্যাপয়েন্টমেন্ট পেয়েছেন, সেখানেই বলা থাকবে যে ভ্যাকসিনেশন সেন্টারে আপনাকে সাথে কি নিয়ে যেতে হবে। তবুও আপনার ভ্যাকসিন পাওয়ার যোগ্যতা প্রমাণ করবে এমন কোন ডকুমেন্ট সাথে নেয়া প্রয়োজন। যেমন, আপনার বয়স ৬৫ বছরের উর্ধে কিনা, তা প্রমাণের জন্য আইডি, আপনি অত্যাবশ্যকীয় কর্মী কিনা, তা প্রমাণ করতে আপনার নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানের কোন চিঠি, বা বেতনে সাম্প্রতিক চেকের কপি। সবগুলো সাথে নিলেও আপনার কোন সমস্যা নেই।

আমার অ্যাপয়েন্টমেন্ট হওয়া সত্বেও কি এমন হতে পারে যে আমার জন্য ভ্যাকসিনের ডোজ নেই?

হ্যাঁ, দুর্ভাগ্যজনকভাবে তাও হতে পারে। গত ১৪ জানুয়ারী মাউন্ট সিনাই হাসপাতাল অনেকের অ্যাপয়েন্টমেন্ট বাতিল করেছে ভ্যাকসিন শেষ হয়ে যাওয়ার কারণে এবং সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের ইমেইলে তা জানিয়ে দেয়া হয়েছে। এর কারণ হলো ভ্যাকসিন পাওয়ার বিষয়টি ভ্যাকসিনেশন কেন্দ্রগুলো নির্ধারণ করে না। অতএব অ্যাপয়েন্টমেন্ট বাতিল করার ঘটনা ঘটতে পারে। সেক্ষেত্রে আপনি অন্য কোন সেন্টারে অ্যাপয়েন্ট পাওয়ার চেষ্টা করতে পারেন।

ভ্যাকসিন নেয়ার জন্য সেন্টারে আমাকে কতক্ষণ অপেক্ষা করতে হতে পারে?

যেসব সেন্টারে ভ্যাকসিন দেয়া হচ্ছে তারা চেষ্টা করছে লোকদের সারি যথাসম্ভব কম দীর্ঘ রাখতে। সেজন্য তারা হিসেব করেই অ্যাপয়েন্টমেন্ট নির্ধারণ করে। তা সত্বেও বাইরে কতক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকতে হবে বা ভেতরে গিয়ে কতক্ষণ অপেক্ষা করতে হবে তা অনুমান করা কঠিন। তবে সর্বত্র সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে এবং মুখে মাস্ক পরে থাকতে হবে।

আমি ভ্যাকসিন নেয়ার পর কি হতে পারে?

ভ্যাকসিন নেয়ার পর কোন বিরূপ প্রতিক্রিয়া হয় কিনা তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য আপনাকে কিছু সময়ের জন্য সেন্টারেই অপেক্ষা করতে হবে। আপনি অস্বস্থি বোধ করলে সংশ্লিষ্টদের জানাতে পারেন। কোন প্রতিক্রিয়া হচ্ছে না তা নিশ্চিত হওয়ার পরই আপনার সেন্টার ত্যাগ করা উচিত।

দ্বিতীয় ডোজ ভ্যাকসিন নেয়ার জন্য আমি কিভাবে অ্যাপয়েন্টমেন্ট নেব?

এটা নির্ভর করে আপনি কোথায় ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েছেন তার উপর। প্রথম ডোজ নেয়ার পরই আপনি সেখানে অপেক্ষা করার স্থানেই দ্বিতীয় দফার জন্য অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে পারেন। যদি সে সুযোগ থাকে তাহলে দ্বিতীয় ডোজের জন্য দিনক্ষণ নির্ধারণ না করে আপনার স্থান ত্যাগ করা সঙ্গত হবে না। তাহলে আপনাকে অ্যাপয়েন্টমেন্ট পেতে প্রথম বারের মত পরিস্থিতিতে পড়তে হতে পারে। সিটির চেয়ে স্টেট পরিচালিত সেন্টারে প্রথম ডোক নেয়ার পরই দ্বিতীয় ডোজের জন্য অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়া সম্ভব। তবে সিটির কোন কোন সেন্টারে দ্বিতীয় ডোজের অ্যাপয়েন্টমেন্ট স্বয়ংক্রিয়ভাবেই হয়ে যায় বলে জানা গেছে।

কেউ যদি অ্যাপয়েন্টমেন্ট ছাড়া কোন সেন্টারে উপস্থিত থাকে তাহলে কি তার পক্ষে ভ্যাকসিন নেয়া সম্ভব?

হ্যাঁ, তা সম্ভব। ভ্যাকসিনেশন সেন্টারগুলো যখন সন্ধ্যার পর কাজ বন্ধ করে এবং তখনো কিছু ভ্যাকসিন রয়ে যায়, তখন ওই সময়ে এমন কেউ উপস্থিত থাকেন, যাদের কেউ অ্যাপয়েন্টমেন্ট নেননি বা অগ্রাধিকার তালিকায় পড়েন না, তারা যদি ভ্যাকসিন নিতে আগ্রহী হন তাহলে তাদেরকে ভ্যাকসিন দেয়া হচ্ছে। কিন্তু এটিকে কারো বিবেচনা করা উচিত নয়।

কোথাও বেড়াতে যাওয়ার ক্ষেত্রে কি হতে পারে?

প্রতিটি স্টেট নিজস্ব বিধি রয়েছে। যেমন; ফ্লোরিডার বিধিতে যারা সেখানকার বাসিন্দা নন, তারাও ভ্যাকসিন নিতে পারবেন। কারণ ফ্লোরিডায় সাময়িক সময়ের জন্য বহু লোক অবস্থান করেন। অবশ্য বিষয়টি নিয়ে ফ্লোরিডার স্থানীয় বাসিন্দারা সন্তুষ্ট নন।

 

Facebook Comments Box

Posted ৬:৩৬ অপরাহ্ণ | সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১

Weekly Bangladesh |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
Dr. Mohammed Wazed A Khan, President & Editor
Anwar Hossain Manju, Advisor, Editorial Board
Corporate Office

85-59 168 Street, Jamaica, NY 11432

Tel: 718-523-6299 Fax: 718-206-2579

E-mail: weeklybangladesh@yahoo.com

Web: weeklybangladeshusa.com

Facebook: fb/weeklybangladeshusa.com

Mohammed Dinaj Khan,
Vice President
Florida Office

1610 NW 3rd Street
Deerfield Beach, FL 33442

Jackson Heights Office

37-55, 72 Street, Jackson Heights, NY 11372, Tel: 718-255-1158

Published by News Bangladesh Inc.